হৃৎপিণ্ড যত্নে আছে তো?
খাদ্য ও পুষ্টি, জীবনযাত্রা, বয়স্কদের স্বাস্থ্য, স্বাস্থ্য সমস্যা

হৃৎপিণ্ড যত্নে আছে তো?

মানুষের হৃদয় বা হৃৎপিণ্ড তার দেহঘড়ি নিয়ন্ত্রণ করে। কিন্তু আমরা কতটা গুরুত্বের সাথে আমাদের হৃদয়ের কথা শুনি? মানুষ হিসেবে আমরা যত উন্নতির দিকে আগাচ্ছি, আমাদের হৃদয় যেন ততোই দুর্বল হয়ে পড়ছে। হৃৎপিণ্ডের সমস্যা শুরু হয়ে গেলে তা নিয়ন্ত্রণে আনা কঠিন। তাই আসুন, জেনে নেই কিভাবে হৃৎপিণ্ডকে ভাল রাখা যায়।

সঠিক চাকরি নির্বাচন করুন

যদিও আপনার মনে হতে পারে এটা একটি অবান্তর কথা, কিন্তু আপনি যদি নিজের কাজে খুশি না থাকতে পারেন সেক্ষেত্রে আপনার দুশ্চিন্তা বাড়বে এবং হাসি ও ঘুম কম হবে। নিজের পছন্দ মত কাজ করলে আপনি সচল, স্বাভাবিক এবং প্রাণোচ্ছল থাকবেন। এতে করে আপনার শরীরে প্রয়োজনীয় হরমোন নিঃসৃত হবে যার ফলে হৃৎপিণ্ড সুস্থ থাকতে পারবে।

অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যুক্ত খাবারের পরিমাণ বাড়িয়ে দিন

অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শরীরের ভেতরে থাকা মুক্তমুলকগুলোর ক্ষতিকারক প্রভাব থেকে শরীরকে রক্ষা করে। ক্যান্সার, ক্রনিক ডিজিজ এবং হৃদরোগের সমস্যা থেকে মুক্ত থাকতে এবং হৃৎপিণ্ড ভাল রাখতে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টযুক্ত খাবার খাওয়া জরুরী। বেরি, বাদাম, বিন, কোকোয়া, সাইট্রাসযুক্ত ফল, এবং সবুজ শাকসবজিতে প্রচুর পরিমাণ অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান পাওয়া যায়। এর সাথে আঁশযুক্ত খাবার, যেমনঃ ফল, ব্রাউন রাইস ইত্যাদি, গ্রহণ করা হৃদপিণ্ডের জন্য খুবই উপকারী।

খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে আনা

খারাপ কোলেস্টেরল আপনার আর্টেরিসে বাধা সৃষ্টি করতে পারে, প্লাক তৈরি করে, রক্তচাপ বাড়িয়ে দেয়। ফলে আপনার শরীরে বিভিন্ন হৃদরোগ দেখা দেয়। এমন খাদ্যাভাস গড়ে তুলুন যা আপনার শরীরের খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে আনতে সাহায্য করে। এতে করে আপনার হৃৎপিণ্ড ভাল থাকবে।

ধূমপান বর্জন

সিগারেটে প্রচুর পরিমাণে ক্ষতিকারক কেমিক্যাল পাওয়া যায় যা হৃদপিণ্ডের জন্য খুবই ক্ষতিকর। ধূমপান রক্তনালীর কার্যক্রমে বাধা দেয়; ফলে উচ্চরক্তচাপ এবং স্ট্রোকের সম্ভাবনা বেড়ে যায় ও হৃৎপিণ্ড অসুস্থ হয়ে পড়ে।

দুশ্চিন্তা মুক্ত থাকুন এবং নিয়মিত ঘুমান

দুশ্চিন্তা আপনার রক্তচাপ ও কোলেস্টেরলের পরিমাণ বাড়িয়ে দিতে পারে যা হৃদপিণ্ডের জন্য খুবই ক্ষতিকর। দুশ্চিন্তামুক্ত থাকার জন্য সময়ের সঠিক ব্যবহার এবং নিয়মিত কমপক্ষে ৬-৮ ঘণ্টা ঘুমানো প্রয়োজন। প্রতিদিনের কাজে নিয়মানুবর্তিতা বজায় রাখুন; হৃৎপিণ্ড সুস্থ রাখুন।

নিয়মিত এবং প্রচুর পরিমাণে হাসবেন

বিভিন্ন রোগের ওষুধ হিসেবে হাসির জুড়ি নেই। আর সে রোগ যদি হৃদরোগ হয় তাহলে তো কোন কথাই নেই। হাসি আপনার শরীরে রক্তের প্রবাহ বৃদ্ধি করে এবং আর্টেরিস শক্ত হওয়া থেকে বিরত রাখে। ফলে আপনার হৃৎপিণ্ড আপনার হাসির মতই সজিব ও সাবলিল থাকে।

নিয়মিত ব্যায়াম করুন

হৃদরোগের হাত থেকে বাঁচার সবচেয়ে ভাল উপায় হল ব্যায়াম। এটা আপনার শরীরে রক্তপ্রবাহের হার বাড়িয়ে দেয়, মেটাবোলিজমের কার্যক্ষমতা বাড়ায়, কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে আনে, অতিরিক্ত মেদ কমিয়ে আপনার ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখে এবং আপনাকে একটি সক্রিয় জীবনে ফিরিয়ে আনে। ফলে আপনার হৃৎপিণ্ড সকল খারাপ অবস্থা থেকে দূরে থাকে।

Comments

comments

Previous Post Next Post

You Might Also Like

Leave a Reply