সৌন্দর্য ও সুস্থতায় মেহেদি পাতা
খাদ্য ও পুষ্টি, গবেষণা, জীবনযাত্রা, ফিটনেস, রূপচর্চা, স্বাস্থ্য সমস্যা

সৌন্দর্য ও সুস্থতায় মেহেদি পাতা !

মেহেদি পাতা বলতে প্রথমেই মাথায় আসে রাঙ্গা হাতে বাহারি নকশা। অনেকে আবার চুলের যত্নে মেহেদি পাতাকেই প্রথম সারিতে রাখে। কিন্তু আমরা অনেকেই জানি না, হাত সাজানো আর চুলের যত্ন ছাড়াও মেহেদি পাতা শরীরের জন্য অনেক উপকারী। চলুন দেখে নেই, হেনা বা মেহেদি পাতা কত ভাবে আমাদের উপকার করে থাকে।

মেহেদি পাতার উপকারিতা

মেহেদির তেল, পাতা এবং বীজ অ্যান্টি-ইনফ্লেম্যাটরি, অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল, অ্যাস্ট্রিঞ্জেন্ট এবং অ্যান্টি-ভাইরাল উপাদান হিসেবে কাজ করে।

ক্ষত সারাতে

মেহেদি পাতা ত্বককে ইনফেকশন এবং জ্বালাপোড়ার হাত থেকে রক্ষা করে। বহু বছর ধরে এই পাতা পোড়া, কাটা ও বিভিন্ন ক্ষততে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। এই পাতায় এক ধরনের প্রশান্তিদায়ক উপাদান আছে যা প্রকৃতপক্ষেই ক্ষত স্থানের জ্বালাপোড়া শোষণ করে নেয়।

জ্বর কমায়

আয়ুর্বেদিক চিকিৎসায় জ্বর সারাতে প্রায়-ই মেহেদি পাতা ব্যবহার করা হত। জ্বর সাধারণত কোনো রোগ নয়; এটি আসন্ন কোনো রোগের লক্ষণ। লক্ষণ হিসেবে যখন ব্যক্তি প্রচণ্ড জ্বরে আক্রান্ত হয়, তখন অতিরিক্ত শরীরের উত্তাপ তার যেকোনো অঙ্গের ক্ষতির কারণ হয়ে উঠতে পারে। তাই, তাৎক্ষনিকভাবে জ্বর কমানো মাঝে মাঝে জরুরী হয়ে পড়ে। মেহেদি পাতার সাহায্যে শরীরের উত্তাপ কমিয়ে ব্যক্তিকে ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করা সম্ভব।

মাথা ব্যথার উপশম

প্রচণ্ড মাথা ব্যথা করছে? কিছু পাতা ছিঁড়ে রস করে নিন। এবার কপালে লাগিয়ে রাখুন কিছুক্ষন। এই পাতার অ্যান্টি-ইনফ্লেম্যাটরি উপাদান সব ধরনের চাপ দূর করে এবং ক্যাপিলারি শিরায় রক্ত চলাচল সচল রেখে মাইগ্রেন ও বিভিন্ন রকম মাথা ব্যথা থেকে মুক্তি দেয়।

বার্ধক্যের ছাপ দূর করতে

মেহেদি পাতা অ্যাস্ট্রোজেন নামক একটি উপাদান বহন করে। এই পাতার রস বলিরেখার উপর লাগালে বার্ধক্যের ছাপ অনেকাংশে কমে আসে। শুধু বার্ধক্যের ছাপ-ই নয়, ক্ষত বা যেকোনো ধরনের ত্বকের দাগ দূর করতে এটি বেশ কার্যকর।

ঘুমের সমস্যা সমাধানে

যেকোনো ধরনের ঘুমের সমস্যা যেমন ইনসোমনিয়া দূর করতে এই পাতা যথেষ্ট উপকারী। প্রতিদিন নিয়ম করে মেহেদি পাতার রস খেলে ঘুমের সমস্যা সমাধান করা সম্ভব।

নখের যত্নে

নখ মজবুত ও আকর্ষণীয় করতে মেহেদির জুড়ি নেই। পানিতে কয়েকটি মেহেদি পাতা ভিজিয়ে রাখুন কিছুক্ষন। পানি হালকা লাল হয়ে আসলে ওই পানি খেয়ে নিন। নিয়ম করে খাবেন।

রক্ত চাপ ঠিক রাখতে

এই পাতা হৃৎপিণ্ড সুস্থ রাখতে সহায়তা করে। মেহেদির রস বা বীজ নিয়মিত খেলে কার্ডিওভাস্কুলার সিস্টেম ও রক্তচাপ স্বাভাবিক থাকে। এটি ধমনীতে রক্ত জমাট বাঁধা প্রতিরোধ করে হার্ট অ্যাটাক ও স্ট্রোকের হাত থেকে ব্যক্তিকে রক্ষা করে।

সতর্কতা

অধিকাংশ মেহেদি পাতা শরীরের জন্য উপকারী; তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে কালো মেহেদি ত্বকের র‍্যাশ, অ্যালার্জি ও আরও বেশ কিছু সমস্যার উদ্রেক করে থাকে। তাই, প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় মেহেদি বা হার্বাল কোন উপাদান রাখার আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

 

Comments

comments

পূর্ববর্তী পোস্ট পরবর্তী পোস্ট

আপনি হয়ত এগুলো পছন্দ করতে পারেন