সুস্থতাই সকল সুখের মূল
বিশেষ দিবস, স্বাস্থ্য সংবাদ

সুস্থতাই সকল সুখের মূল

সত্যিই কি স্বাস্থ্য সকল সুখের মূল? পরিচিত কারো সাথে দেখা হলে আমরা জিজ্ঞাসা করি, কেমন আছেন? আসলে আমরা জানতে চাই শরীরটা ভালো যাচ্ছে তো? স্বাস্থ্য হচ্ছে একজন ব্যক্তির শারীরিক, মানসিক ও সামাজিক অবস্থার সামগ্রিক কল্যাণকর অবস্থা। স্বাস্থ্যের সাথে আমাদের জীবনের গুরুত্বপূর্ণ সবকিছুই জড়িত। স্বাস্থ্য ভালো না থাকলে কোনো কিছুই ভালো থাকে না।

আমরা কেউই অসুস্থ হতে চাই না। অসুস্থ হলে যে শুধু খারাপ লাগে তা-ই নয় বরং অসুস্থতার কারণে দৈনন্দিন জীবনযাত্রাও ব্যাহত হয়। কোনো দুরারোগ্য রোগে আক্রান্ত রোগীর সাথে কথা বললে বোঝা যায় “স্বাস্থ্য ছাড়া সবকিছুই মূল্যহীন”। পরিবেশ দূষণ, অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাত্রা, কম শারীরিক পরিশ্রম ইত্যাদি কারণে আমরা অসুস্থ হয়ে পড়ি।

সুস্থ, সুন্দর ও ফিট শরীর সবারই কাম্য। আসুন জেনে নেই সুস্থ থাকার কিছু নিয়মাবলী।

১. নিয়মিত ও পরিমিত খাদ্যাভ্যাস গড়ে তুলুন। খাবার তালিকায় আঁশযুক্ত খাবার বাড়ান। আমিষ ও চর্বিজাতীয় খাবার কমিয়ে আনুন। ভাজা-পোড়া ও ফাস্টফুড জাতীয় খাবার সম্পূর্ণ বন্ধ করুন।

২. খাবারের শুরুতে এক থেকে দুই গ্লাস পানি পান করুন। খাবার শেষে অন্তত এক থেকে দুই ঘণ্টা পর পানি পান করবেন।

৩. লালমাংস (চার পা বিশিষ্ট পশুর মাংস), দোকানের কেনা মিষ্টি, ঘি, ডালডা, ডাল ও ডালজাতীয় খাবার কম খান।

৪. ফলমূল ও শাকসবজি বেশি করে খাদ্য তালিকায় রাখুন। একবারে বেশি করে খাওয়ার চেয়ে অল্প অল্প করে বার বার খেতে পারেন।

৫. রাতে তাড়াতাড়ি খাওয়া উচিত। খাওয়ার এক থেকে দুই ঘণ্টা পর শোওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন।

৬. সুস্বাস্থ্যের জন্য নিয়মিত ও পরিমিত ঘুম প্রয়োজন। দিনে ঘুমানোর অভ্যাস ত্যাগ করে রাতে তাড়াতাড়ি ঘুমের অভ্যাস গড়ে তুলুন। প্রতিদিন ছয় থেকে সাত ঘণ্টা ঘুমের অভ্যাস গড়ুন।

৭. যাদের মেদ বা ভুড়ি জমেছে তারা নিয়মিত ও সঠিক ব্যায়াম করতে পারেন। এর জন্য একজন ফিজিওথেরাপি বিশেষজ্ঞের পরামর্শ গ্রহণ করা যেতে পারে। মনে রাখবেন ভুল ব্যায়াম ও অনিয়ন্ত্রিত ‘জিম এক্সারসাইজ’ আপনার সমস্যা আরও বাড়িয়ে তুলতে পারে।

৮. প্রতিদিন সমতল জায়গায় হাঁটার চেষ্টা করুন। মনে রাখবেন হাঁটা সর্বোৎকৃষ্ট ব্যায়াম।

৯. ভোরে ঘুম থেকে উঠার অভ্যাস গড়ে তুলুন। সকালে স্কুল, কলেজ বা অফিসে যাওয়ার আগে গোসল সেরে নিন।

১০. বেশি উঁচু তলায় উঠার দরকার না হলে, লিফটের পরিবর্তে সিঁড়ি ব্যবহার করুন।

আগে স্বাস্থ্য পরে অন্যকিছু। সুস্থ দেহ ও মন আমাদের সকলেরই কাম্য। কিন্তু কর্মব্যস্ত জীবনে নিজের শরীরের দিকে আমরা খুব একটা খেয়াল রাখিনা। তাই কখন কোন দিক দিয়ে চেহারায় পড়ে যায় বয়সের ছাপ, ওজন বৃদ্ধি পায় নিজের অজান্তেই, দেহের ত্বক, চুল  সবকিছুই কেমন যেন মলিন হয়ে যায়। তাই যে কোন কিছুর আগে অবশ্যই নিজের দেহকে সুস্থ রাখতে হবে। সুস্থতায় সুন্দর,  সুন্দরই জীবন তাই আসুন আমরা দেরি না করে স্বাস্থ্যের প্রতি যত্নশীল হই।

Comments

comments

Previous Post Next Post

You Might Also Like

Comments are closed.