ওজন নিয়ন্ত্রণ, খাদ্য ও পুষ্টি, ঘরোয়া চিকিৎসা, জীবনযাত্রা, ফিটনেস, ভেষজ, রূপচর্চা, স্বাস্থ্য সমস্যা

লেবুর উপকারিতা

অনেককেই বলতে শোনা যায়, যে তরকারি খেতে সুস্বাদু হয় না, সেটাতে একটু লেবু মিশিয়ে নিলে তার স্বাদ যেন কয়েক গুণে বেড়ে যায়। লেবু যে স্বাদবর্ধক সে বিষয়ে কারো সন্দেহ নেই। এমনকি লেবু পছন্দ করেন না এমন মানুষ-ও নেই বললেই চলে। চটপটি, ফুচকা, হালিম, শরবত, ছোলা, বিরিয়ানি- এসব মুখরোচক খাবারে একটু লেবুর রস ছড়িয়ে না দিলে ব্যাপার টা যেন ঠিক জমে না!

লেবু কি শুধুই স্বাদবর্ধক? না তা নয়। স্বাদ বাড়ানোর পাশাপাশি এটি বিভিন্ন ভাবে আমাদের শরীরের উপকার করে থাকে। লেবুর উপকারিতা এতোই বেশি যে তা এক পোস্টে ছোট করে বর্ণনা করা সম্ভব নয়। চলুন, লেবুর উপকারিতা সম্পর্কে কিছু জেনে আসি।

কিডনির পাথর

সাধারণত কিডনির পাথর ছোট থাকে এবং মূত্রের সাথে বের হয়ে যায়। কিন্তু এই পাথর বড় হয়ে গেলে আমাদের মুত্রথলিতে জমা হয় এবং প্রচুর ব্যাথার সৃষ্টি করে। কিডনিতে পাথর হওয়া থেকে বাঁচতে লেবুর উপকারিতা অপরিসীম। লেবুর রস আমাদের শরীরকে রিহাইড্রেট করে এবং কিডনির পাথর তৈরি হতে বাধা দেয়।

লিভার সুস্থ রাখে এবং হজমে সাহায্য করে

লেবুর পানি লিভারে থাকা পরিপাকসংক্রান্ত এনজাইমগুলোকে সক্রিয় করে তোলে। ফলে খাদ্য হজম প্রক্রিয়া ঠিকমত কাজ করে। কোষ্ঠকাঠিন্য ও হজম সংক্রান্ত সমস্যা থেকে রক্ষা পেতে লেবুর উপকারিতা অনস্বীকার্য। লেবু রক্তের অক্সিজেন পরিবহনের মাত্রাও বাড়িয়ে দেয়।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করা

লেবুর মধ্যে থাকে সাইট্রাস বায়োফ্ল্যাভোনয়েড, ভিটামিন সি এবং ফাইটোনিউট্রিয়েন্টস্‌ যা আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

ওজন বৃদ্ধি, রিউম্যাটিজম, স্কার্ভি, মাড়ির সমস্যা এবং মুখের ক্ষত

ওজন নিয়ন্ত্রণে লেবুর উপকারিতা অনেক। সকালে উঠে কুসুম গরম পানিতে লেবু ও মধু মিশিয়ে খেলে শরীরের অতিরিক্ত মেদ কমে যায়।

প্রতি বেলা খাবারের আগে এবং ঘুমাতে যাওয়ার আগে লেবু পানি পান করলে রিউম্যাটিজম থেকে রক্ষা পাওয়া যায়।

এছাড়াও নিয়মিত লেবু পানি খেলে বা লেবু পানি দিয়ে কুলি করলে স্কার্ভি, মাড়ির সমস্যা এবং মুখের ক্ষত থেকে রক্ষা পাওয়া যায়।

ক্যান্সার

গবেষণায় পাওয়া গেছে লেবুর ভেতরে এমন অনেক উপাদান আছে যা শরীরে টিউমার তৈরি হতে বাধা সৃষ্টি করে। ক্যান্সার প্রতিরোধে লেবুর উপকারিতা সীমাহীন।

রক্তচাপ এবং দুশ্চিন্তা কমায়

লেবু পানি শরীরে এক ধরনের শান্তির সৃষ্টি করে। ফলে এটা আপনাকে দুশ্চিন্তা, হতাশা এবং আশংকা থেকে মুক্ত রাখে। লেবুর উপকারিতা শুধু শরীরে সজিবতা আনায়নেই সীমাবদ্ধ নয়, আপনার রক্তচাপও নিয়ন্ত্রণেও লেবু কার্যকরী ভূমিকা পালন করে।

পি এইচ (PH) এর মাত্রা ঠিক রাখে

এক গ্লাস লেবুর পানি আপনার শরীরে অম্ল ও ক্ষারের মাত্রা বজায় রাখে। আপনার শরীরের পি এইচ-এর মাত্রা ঠিক রাখতে লেবুর উপকারিতা অনেক। ফলে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা আমাদের থেকে দূরে থাকে।

ডিটক্সিফিকেশন

আমাদের শরীরের বিভিন্ন বিষাক্ত পদার্থ মূত্রের সাথে বের করে দিতে লেবুর উপকারিতা অনেক। ফলে আমাদের শরীর বিভিন্ন মারাত্মক রোগ, যেমনঃ ক্যান্সার, চোখ নষ্ট ইত্যাদির হাত থেকে বেঁচে যায়।

ত্বক ও চুলের যত্ন

নিয়মিত প্রতিদিন এক গ্লাস লেবুর পানি পান করলে আমাদের ত্বক ও চুল  পুনরুজ্জীবিত হয়ে ওঠে। অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টি এজিং উপাদান থাকায় লেবুর উপকারিতা শুধু ত্বককে সুস্থ রাখাতেই সীমাবদ্ধ থাকে না; এটি ত্বকে বলিরেখা পড়া থেকেও ত্বককে রক্ষা করে। ফলে আমাদের ত্বক থাকে সুস্থ এবং প্রানবন্ত।

Comments

comments

পূর্ববর্তী পোস্ট পরবর্তী পোস্ট

আপনি হয়ত এগুলো পছন্দ করতে পারেন

কোন মন্তব্য নেই

উত্তর দিন