ঘরোয়া চিকিৎসা, ঘরোয়া টিপস্‌, চর্মরোগ, জীবনযাত্রা, ফিটনেস, রূপচর্চা

মেছতা দূর করার উপায়

মেছতা এক ধরনের অভিশাপ। গাল ভরতি মেছতা আপনার ঘন কালো চুল, সুতীক্ষ্ণ নাক আর মায়াময় চোখের আকর্ষণকে ধূলায় মিশিয়ে দেয়। শুধু তাই নয়, আপনার ত্বক যত বেশি ফর্সা ও সজীব হয়, মেছতার কালো দাগগুলো যেন ততই স্পষ্ট হয়ে ওঠে। এই মেছতার জন্য কত কত সম্পর্ক নষ্ট হয়, ঘর ভেঙ্গে যায় এমনকি নতুন সম্পর্ক তৈরি হতে গিয়েও পিছিয়ে যায় তার ইয়ত্তা নেই। এই অপমান থেকে রেহাই পাবেন কীভাবে? চলুন, ঘরোয়া পদ্ধতিতে মেছতা দূর করার উপায় জেনে নেই।

মেছতা দূর করার উপায়

একবার মেছতা হওয়া শুরু করলে তা দূর করা সহজ নয়। তবে কিছু সাধারণ ঘরোয়া পদ্ধতি নিয়মিত অনুসরণ করার মাধ্যমে মেছতা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

মধু ও টকদই

একটি বাটিতে ২-৩ টেবিল চামচ মধু ও সম পরিমান টক দই নিয়ে ভাল করে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এটি ত্বকে লাগিয়ে ৩০ মিনিট অপেক্ষা করুন। ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ভাল করে ঘষে তুলে ফেলুন। এক দিন পর পর পেস্টটি ত্বকে লাগান।

লাউ

লাউ মেছতা দূর করার উপায় ? অবাক হয়েছেন না? এক টুকরা লাউ নিন। চুলার আগুনে পুড়িয়ে নিন। গরম কমে আসলে পোড়া লাউ মেছতার উপরে ঘষুন। এই পদ্ধতিটি প্রতিদিন অনুসরণ করতে চেষ্টা করুন।

দারুচিনি ও দুধ

এক চিমটি দারুচিনির গুড়া ও অল্প দুধের সর মিক্স করুন। মেছতার দাগের উপরে লাগান। শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে মাসাজ করে উঠিয়ে ফেলুন। দারুচিনি মেছতা দূর করার উপায় হিসেবে কার্যকর।

মেছতা দূর করার ক্ষেত্রে কোন কোন বিষয় মেনে চলতে হবে?

মেছতা নির্মূল করা বেশ কঠিন। ঔষধ বা মলম লাগিয়ে এই রোগ দূর করা যায় না বললেই চলে। সেজন্য আপনাকে সবসময় সতর্ক থাকতে হবে। কীভাবে সাবধান থাকবেন?

  • বাইরে বের হওয়ার আগে পর্যাপ্ত সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন। খেয়াল রাখবেন, এসপিএফের মাত্রা যেন ৩০ হয়। সানস্ক্রিনের প্যাকেটে এস পি এফ-এর মাত্রা লেখা থাকে।
  • বাইরে বের হওয়ার সময় স্কার্ফ, ওড়না বা আঁচল মাথায় জড়িয়ে নিন। সম্ভব হলে চওড়া টুপি পরুন। সানগ্লাস সঙ্গে রাখুন, সবসময়।
  • ঘাড়-পিঠ ঢাকা, ফুলহাতা জামা পরুন।
  • ব্লিচিং ফেসিয়াল এড়িয়ে চলুন। এমন ফেসিয়াল ট্রিটমেন্ট নিন যার মাধ্যমে ভিটামিন ‘এ’ অ্যাসিড, ঢাজোরাক ও ডিফেরিন জাতীয় উপাদানগুলো প্রাকৃতিকভাবে পাওয়া যায়।
  • সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টার মধ্যবর্তী সময়ে রোদের মধ্যে কম বের হতে চেষ্টা করুন। এই সময়ে রোদের ক্ষতিকর প্রভাব বেশি থাকে।
  • জন্ম নিয়ন্ত্রণ পিল গ্রহণ এবং হরমোন থেরাপি বন্ধ করতে হবে।
  • বাইরে বের হলে সবসময় ছায়ায় থাকুন। সম্ভব হলে সবসময় ছাতা ব্যবহার করুন।
  • রোদ থেকে বাঁচার জন্য শিশুদের সানস্ক্রিন ব্যবহারের অভ্যাস গড়ে তুলুন।

Comments

comments

পূর্ববর্তী পোস্ট পরবর্তী পোস্ট

আপনি হয়ত এগুলো পছন্দ করতে পারেন