খাদ্য ও পুষ্টি, গবেষণা, জীবনযাত্রা

পুনরায় গরম করা খাবার খাওয়ার পরিণাম কি?

ভোজন রসিক বাঙ্গালির খাদ্য প্রীতি বরাবরই অনেক বেশি। খাবার বেশি হয় হোক; কিন্তু কম হলে চলবে না। তাই অধিকাংশ পরিবারেই প্রত্যেক বেলার খাবার বেঁচে যায়। অপচয় রোধ করতে নিয়মিত সেই খাবার ঢুকে পড়ে ফ্রিজে। পরবর্তীতে পুনরায় গরম করা খাবার খেয়ে তৃপ্তির ঢেঁকুর তোলা!

বেঁচে যাওয়া খাবার পুনরায় গরম করে খাওয়ার এই দৃশ্য কিন্তু খুব-ই পরিচিত। দৈনন্দিন জীবনে এই চর্চা আপনার ঝামেলা অনেকাংশে কমালেও এটি আপনার শরীরের কতটা ক্ষতি করে, সেটা জানেন কি?

ভাত

ভাত ছাড়া আমাদের এক বেলাও চলেনা। আবার সেই ভাতটি গরম না থাকলেও মনে শান্তি আসেনা। কিন্তু পুনরায় গরম করা ভাত খেলে আপনি রীতিমত অসুস্থ হয়ে পড়বেন। অনেকক্ষণ রেখে দেওয়া ভাত গরম করলে এতে ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়া জন্ম নেয় যা পাকস্থলীতে সমস্যা ও ডায়রিয়া সৃষ্টি করে।

মুরগি

মুরগি একবার রান্না করে কয়েকদিন ধরেই গরম করে খাওয়া যায়। কিন্তু জেনে অবাক হবেন যে মুরগি পুনরায় গরম করা হলে সেটি স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ক্ষতিকারক। মুরগিতে থাকে প্রচুর পরিমাণ প্রোটিন। যা পুনরায় উচ্চ তাপমাত্রায় গরম করলে হজমের সমস্যা সৃষ্টি করে। তাই মুরগি পুনরায় গরম না করাই শ্রেয়। ফ্রিজে থাকলে খাবার কিছুক্ষন আগে বের করে সাধারণ তাপমাত্রায় আসলে খেয়ে নিন।

ডিম

সিদ্ধ ডিম কখনই গরম করা উচিত নয়। কারণ ডিম উচ্চ তাপের সংস্পর্শে আসলে বিষাক্ত হয়ে যায় যা আপনার পেট খারাপের অন্যতম কারণ হয়ে দাড়ায়।

আলু

আলু বার বার গরম করা হলে এরা শুধুমাত্র এর পুষ্টিগুণই হারায় না বরং বিষাক্তও হয়ে ওঠে। তাই আলু এক বারে খেয়ে নেওয়া ভাল। কয়েক দিনের জন্য খাবার রান্না করা হলে আলু পরে যোগ করাই শ্রেয়।

মাশরুম

মাশরুম আর মুরগির ক্ষেত্রে একই উপায় গ্রহণ করা ভাল। মাশরুমের তৈরি খাবার সাথে সাথে খেয়ে নেয়া উচিৎ।

নাইট্রেট সমৃদ্ধ খাবার

নাইট্রেট সমৃদ্ধ খাবার পুনরায় গরম করা হলে এটি সকল পুষ্টিগুণ হারিয়ে ফেলে এবং শরীরের জন্য ক্ষতিকর হয়ে দাড়ায়। এরা শরীরে ক্যান্সার সৃষ্টির জন্যও দায়ী। পালং শাক,শালগম, সেলারি ও বিট ইত্যাদি খাবারে প্রচুর পরিমাণে নাইট্রেট পাওয়া যায়।

Comments

comments

Previous Post Next Post

You Might Also Like

Leave a Reply