আচরণগত সমস্যা, খাদ্য ও পুষ্টি, ঘরোয়া চিকিৎসা, জীবনযাত্রা, ফিটনেস, মানসিক স্বাস্থ্য, স্বাস্থ্য সমস্যা

নাক ডাকার সমাধান কী?

সিনেমা, নাটক বা কৌতুকে নাক ডাকা ব্যাপারটা যতটা মজার, বাস্তবে কিন্তু তা নয়। পাশের মানুষটি সারা রাত নাক ডাকলে কি করুণভাবে যে নির্ঘুম রাত পার করতে হয় তা একজন ভুক্তভোগী-ই জানে। মাঝে মাঝে নাক ডাকা এতোই মারাত্মক আকার ধারণ করে যে অনেকেই ডাক্তারের শরণাপন্ন হন। তবে প্রাথমিক পর্যায়ে ঘরোয়া কিছু পদ্ধতি অবলম্বন করে নাক ডাকার সমাধান করা সম্ভব।

হলুদ

শক্তিশালী অ্যান্টিসেপ্টিক এবং অ্যান্টিবায়োটিক উপাদান থাকায় হলুদ শরীরে জ্বালা-পোড়া ভাব এবং নাক ডাকার সমাধান করতে সাহায্য করে।

এক গ্লাস গরম দুধের মধ্যে এক চা চামচ হলুদের গুঁড়া মিশিয়ে শুয়ে পড়ার ৩০ মিনিট আগে খেয়ে নিন। এভাবে নিয়মিত খেলে নাক ডাকা কমে আসে।

এক দিকে কাত হয়ে ঘুমান। 

নাক ডাকার সমাধান করতে নিয়মানুযায়ী ঘুমানোর জুড়ি নেই। তবে চিৎ হয়ে ঘুমালে আমাদের জিহ্বা গলার কাছে চলে আসে যা নাক ডাকার জন্য দায়ী। এ কারণে ঘুমের সময় কাত হয়ে ঘুমাতে চেষ্টা করবেন। প্রয়োজনে পেছনে বালিশ বা দেয়ালের সাথে পিঠ লাগিয়ে শুতে চেষ্টা করুন।

ওজন কমান

ওজন বাড়লে শরীরের বিভিন্ন স্থানে মেদ জমে। অনেকের গলাতে বা শ্বাসযন্ত্রে বেশি পরিমাণে মেদ জমে যা নাক ডাকার জন্য উপযোগী। সুতরাং নাক ডাকার সমাধান করতে ওজন কমান।

মদপান এবং ড্রাগ নেওয়া

মাদকদ্রব্য বা ড্রাগ কার্যত ঘুমের উদ্রেক ঘটায় এবং আপনার শরীরকে আরামে রাখে। শ্বাসতন্ত্রের মাংসপেশীর শক্তি কমিয়ে দেয়। ফলে শ্বাসতন্ত্র দুর্বল হয়ে পড়ে এবং নাক ডাকার পরিমাণ বেড়ে যায়। ঘুমাতে যাওয়ার ৪ ঘণ্টার মধ্যে কোনোরূপ মদ্যপান বা ওষুধ খাওয়া থেকে বিরত থাকা নাক ডাকার সমাধান হিসেবে উত্তম।

শোবার ঘর পরিষ্কার রাখুন

নাক ডাকা অনেকের ক্ষেত্রে অ্যালার্জির লক্ষণ। ধুলাবালি এড়িয়ে চললে অ্যালার্জির প্রভাব কম থাকে। নাক ডাকার সমাধান করতে আপনার শোবার ঘর অবশ্যই পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা উচিত।

হাইড্রেটেড থাকুন

আপনার শরীর ডিহাইড্রেটেড থাকলে শ্বাসতন্ত্রের কিছু অঙ্গ একটা আর একটার সাথে লেগে থাকে যা আপনার নাক ডাকার প্রবণতা বৃদ্ধি করে। তাই নাক ডাকার সমাধান করতে প্রচুর পরিমাণে পানি পান করুন।

নাকের আবদ্ধতা

অনেক সময় সর্দি বা অন্যান্য কারণে নাক আটকে থাকে বা নাক হতে বাতাস পরিবহনে সমস্যা হতে থাকে। এসময় নাক ডাকার পরিমাণ বেড়ে যায়। ভ্যাপোর বা অন্য যে কোন আবদ্ধতা দূরীকরণ উপাদান বুকে মাসাজ করুন। গরম পানিতে গোসল করেও নাক ডাকার সমাধান করা সম্ভব।

Comments

comments

Previous Post Next Post

You Might Also Like

Leave a Reply