দাম্পত্যকলহ সন্তানের উপরে যে সব প্রভাব সৃষ্টি করে
জীবনযাত্রা, সামাজিক সচেতনতা

সন্তানের সামনে নয়, দাম্পত্যকলহ থাকুক গোপনে

দাম্পত্য জীবনে কলহ থাকবে এটাই স্বাভাবিক। পৃথিবীতে এমন দম্পতি বোধহয় পাওয়াই যাবেনা যারা জীবনে এক দিনও ঝগড়া করেনি। কিন্তু এটা যে আপনার সন্তানের উপর কত বড় প্রভাব ফেলে সেটা কি আপনি ভেবে দেখেছেন?

একটা বয়স পর্যন্ত বাচ্চারা অত্যন্ত অনুকরণপ্রবণ থাকে। সেই বেড়ে ওঠার সময়ে আপনাদের মধ্যকার ঝগড়া-বিবাদ আপনার সন্তানকে মানসিকভাবে বিকলাঙ্গ করে তুলতে পারে।

দাম্পত্যকলহ সন্তানের উপরে যে সব প্রভাব সৃষ্টি করে

১। শিশুর জগৎ অত্যন্ত সীমিত। বাব-মা ও ভাই-বোন এই নিয়েই তার জীবন। সংসারে তার আপনজনদের সে যেভাবে দেখে আসছে সে সেভাবেই বড় হবে। এই সময়ে সে যদি দেখে যে পরিবারের সবাই ঝগড়া-বিবাদে লিপ্ত তাহলে সেও সেটাই শিখবে এবং পরিবারের এই সব কিছু তাকে মানসিকভাবে হতাশাগ্রস্থ করে তুলবে।

২। বাবা-মা ঝগড়া করলে পরিবারের শান্তি নষ্ট হয়ে যায়। যার কারণে নিজের পরিবারের সাথে থাকা সত্ত্বেও শিশুরা সবসময় ভীত এবং অসহায় বোধ করতে থাকে।

৩। ঝগড়া আপনারা করছেন কিন্তু বাচ্চাকে কোনো এক পক্ষ বেছে নিতে হচ্ছে। কীভাবে সে পক্ষ নিবে? দুজনই তো তার বড় আপন। এই দ্বন্দ্ব জীবনে যেকোনো সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে বাধা সৃষ্টি করে।

৪। বেশির ভাগ সময়ে বাবা-মায়ের ঝগড়ার কেন্দ্র থাকে সন্তানের ভালোমন্দ। কিন্তু অবুঝ সন্তান কি আর তা বোঝে? সে তখন নিজেকে দোষী ভাবতে থাকে যার ফলে সে নিজে কখনো অন্য কারো জীবনে যুক্ত করতে চায় না।

৫। বাচ্চারা আপনাকে দেখেই তো শিখবে। সে যদি আপনাদেরকে ঝগড়া করতে দেখে তাহলে সে সেটাই রপ্ত করবে এবং তার ভবিষ্যৎ দাম্পত্য জীবনেও এর প্রভাব বিদ্যমান থাকবে।

৬। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, যাদের পরিবারে বাবা-মা সবসময় ঝগড়া করতে থাকে সেই পরিবারের ছেলে-মেয়েদের বিয়ে এবং পরিবারের প্রতি অনীহা সৃষ্টি হয় এবং তারা সংসার করতে প্রচণ্ড ভয় পায়।

৭। দাম্পত্যকলহ আপনার মনকে বিষিয়ে তুলে যার ফলে আপনি সন্তানের সঠিক যত্ন নিতে ব্যর্থ হন। এছাড়া বাবা-মার সাথে সন্তানের সম্পর্কেরও অবনতি ঘটতে থাকে।

Comments

comments

Previous Post Next Post

You Might Also Like

Comments are closed.