চুলের যত্নে জবা ফুল!
জীবনযাত্রা, ভেষজ, রূপচর্চা

চুলের যত্নে জবা ফুল!

জবা ফুল গাছ ভরতি করে ফুল দিতে কার্পণ্য করে না। বাড়ির উঠানে, স্কুল কলেজে, পার্কে এমনকি রাস্তার পাশে জবা গাছ দেখা যায়। গোলাপ বা রজনীগন্ধার মত অভিজাত না হলেও চুলের যত্নে জবা ফুল যে কার্যকরী ভূমিকা রাখে তা সত্যিই অভাবনীয়। শুধু জবা ফুল-ই নয়, জবার পাতাও চুল পড়া কমানো সহ আরও অনেক উপকারে আসে।

১। কিছুটা নারকেল তেলে রোদে শুকানো জবা ফুল দিয়ে ২-৩ মিনিট ফুটান। এই তেল চুল পড়া এবং চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

চুলের যত্নে জবা ফুল দিয়ে তৈরি নিয়মিত এই সল্যুশন মাথায় মাসাজ করলে মাথা ঠাণ্ডা থাকে এবং মাথার ত্বক সুস্থ রাখতে সহায়তা করে।

২। ১টি জবা ফুলের সাথে ৬টি জবা ফুলের পাতা নিয়ে ভাল করে ধুয়ে বেটে পেস্ট বানিয়ে মাথায় লাগান। এটি খুশকি থেকে মুক্তি পেতে সহায়তা করে। এক্ষেত্রে পেস্টটি ১৫-২০ মিনিট রেখে শুধু পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলবেন। কোন সাবান বা শ্যাম্পু ব্যবহার করবেন না।

আরও উপকার পাবার জন্য ১ টেবিল চামচ মধু মেশাতে পারেন।

৩। চুলের যত্নে জবা ফুল অপ্রতিদ্বন্দ্বী। নারকেল তেল বা অলিভ অয়েলে ২ টি জবা ফুল মিশিয়ে গরম করুন; ফুটাবেন না। এই তেল নিয়মিত চুলের আগায় ব্যবহার করলে আপনার চুলের আগা ফাটার সমস্যা কমে যাবে।

৪। জবা ফুলের কয়েকটি পাতা এক গ্লাস পানিতে সিদ্ধ করে ঠাণ্ডা করুন। এর মধ্যে একটি লেবুর রস মিশিয়ে চুলে ব্যবহার করুন। কিছুক্ষণ পর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে ব্যবহার করলে চুল পড়া হ্রাস পায়।

৫। শরীর এবং মাথা ঠাণ্ডা রাখতে জবা ফুল মিহি করে চা বা বাটারমিল্কের সাথে মিশিয়ে খেতে পারেন। চুলের যত্নে জবা ফুল শুধু বাহ্যিক ভাবেই নয়, ভিতর থেকেও সহায়তা করে।

৬। খুশকি কমানোর জন্য ১০ চা চামচ জোজোবা তেলের সাথে অর্ধেক চা চামচ করে জবা, গাঁদা এবং তুলসি ফুলের তেল মিশিয়ে চুলে ব্যবহার করুন। ১৫-২০ মিনিট রেখে মৃদু শ্যাম্পু ব্যবহার করে ধুয়ে ফেলুন।

৭। সিদ্ধ জবা ফুলের শিকড় বা মূল গুড়া করে পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্ট মাথা ব্যথা কমাতে সহায়তা করে।

চুলের যত্নে জবা ফুল তেল, মাস্ক, সল্যুশন সকল আকারেই সাহায্য করে থাকে। হাতের কাছে এতো উপকারী একটি প্রাকৃতিক উপাদান থাকতে কৃত্রিমতার আশ্রয় নেবেন কেন?

Comments

comments

পূর্ববর্তী পোস্ট পরবর্তী পোস্ট

আপনি হয়ত এগুলো পছন্দ করতে পারেন

কোন মন্তব্য নেই

উত্তর দিন