খাদ্য ও পুষ্টি, ঘরোয়া চিকিৎসা, জীবনযাত্রা, ফিটনেস, ভেষজ, স্বাস্থ্য সমস্যা

ইসবগুলের ভুষি অ্যাসিডিটির জন্য দায়ী হতে পারে

প্লান্টাগো ওভাটা উদ্ভিদ থেকে পাওয়া যায় ইসবগুলের ভুষি। ইফতারে ইসবগুলের ভুষি দিয়ে তৈরি শরবত চাই-ই চাই! ইসবগুলে আছে খাদ্য আঁশ যা কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে এবং অন্ত্রের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে। ডায়রিয়া এবং কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রনেও ইসবগুলের জুড়ি নেই।

ইসবগুলের উপকারিতা সম্পর্কে তো আমরা সবাই জানি। কিন্তু এর সম্ভাব্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কি হতে পারে তা কি জানি?

ঔষধের কার্যকারিতায় ব্যাঘাত ঘটায়

ইসবগুলের ভুষি প্রয়োজনীয় খাদ্যআঁশে পরিপূর্ণ যা শরীরে রক্তের মাত্রা কমিয়ে দিতে পারে। সুতরাং ট্রাইসাইক্লিক অ্যান্টিডিপ্রেস্যান্ট, ডাইগক্সিন, বাইল অ্যাসিড সেকুয়েস্ট্র্যান্টস অথবা কারবেমাজেপাইন ঔষধের কার্যক্ষমতায় ব্যাঘাত ঘটায়। যারা এসব ঔষধ খাচ্ছেন তারা ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে ইসবগুল খাবেন।

গ্যাস বা পেট ফাঁপা

অনেক সময় ইসবগুলের ভুষি দিয়ে তৈরি করা খাবার খেলে গ্যাস বা পেট ফাঁপতে পারে। অতিরিক্ত গ্যাস বা পেট ফাঁপা দেখা দিলে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

গ্যাস্ট্রোইন্টেস্টাইনাল ট্র্যাক্টের কাজে বাধা দেয়

অনেক সময় ইসবগুলের ল্যাক্সেটিভ গ্যাস্ট্রোইন্টেস্টাইনাল ট্র্যাক্টের কাজে বাধা দেয় অথবা অবরুদ্ধ করে ফেলে। পানির সাথে সঠিক পরিমাণে ইসবগুলের ভুষি মিশিয়ে খেতে না পারলে প্রকট সমস্যা হতে পারে, এমনকি বাওএল সার্জারিও করতে হতে পারে।

ঠিকমত খাবার চাবাতে না পারলেও হজমে সমস্যা হয়। তাই মুখে বা ঠোঁটে কোন ইনফেকশন হলে ইসবগুলের ভুষি না খাওয়াই শ্রেয়।

অ্যালার্জি হতে পারে

অ্যানাফাইল্যাক্সিস জাতীয় মারাত্মক অ্যালার্জির সমস্যা থাকলে ইসবগুলের ভুষি না খাওয়াই ভাল। অ্যালার্জিক প্রতিক্রিয়া হলে বমি, বুক চেপে আসা, শ্বাস-প্রশ্বাসে কষ্ট, চুলকানি এবং গুটি গুটি উঠবে। নিরাপদে থাকার জন্য এর মধ্যে কোন একটা লক্ষণ দেখা দিলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

Comments

comments

Previous Post Next Post

You Might Also Like

Leave a Reply